হোলি আর্টিজান হামলা: সাতজনের মৃত্যুদণ্ড, একজন খালাস

বাংলাদেশে ২০১৬ সালে ঢাকার অভিজাত এলাকা গুলশানের হোলি আর্টিজান বেকারিতে জঙ্গি হামলার মামলায় সাতজন জঙ্গিকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছে ঢাকার একটি বিশেষ আদালত।

ঢাকার সন্ত্রাস বিরোধী বিশেষ ট্রাইব্যুনাল বুধবার দুপুরে এ রায় ঘোষণা করেন।

যাদের মৃত্যুদণ্ড দেয়া হয়েছে:

জাহাঙ্গীর হোসেন ওরফে রাজিব গান্ধী
আসলাম হোসেন ওরফে রাশেদ ওরফে রাশ
সোহেল মাহফুজ ওরফে হাতকাটা মাহফুজ
হাদিসুর রহমান সাগর
রাকিবুল হাসান রিগ্যান
মামুনুর রশিদ রিপন
শরিফুল ইসলাম খালিদ।

তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ হচ্ছে, হামলার পরিকল্পনা করা এবং হামলাকারীদের সহায়তা করা। তবে আদালত বলেছে, হোলি আর্টিজান বেকারিতে হামলার মূল পরিকল্পনা করেছে তামিম চৌধুরী, যিনি কয়েকবছর আগে নারায়নগঞ্জে এক অভিযানে নিহত হয়েছে।

মিজানুর রহমান ওরফে বড় মিজান নামে অভিযুক্ত আরেকজনকে খালাস দিয়েছে আদালত।

রায় ঘোষণার সময় বিচারক বলেছেন, ন্যায়বিচার নিশ্চিত করার জন্য সর্বোচ্চ চেষ্টা করা হয়েছে।

মধ্যপ্রাচ্য-ভিত্তিক জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক স্টেট গোষ্ঠির দৃষ্টি আকর্ষণ করা এবং জনমনে ভয় তৈরি করার জন্য ওই হামলা চালানো হয়েছিল বলে আদালত উল্লেখ করেছে।

এই রায় ঘোষণোকে কেন্দ্র করে নাশকতার আশংকায় ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ জায়গায় গোয়েন্দা নজরদারি বাড়ানো হয়েছে।

তিন বছর আগে ২০১৬ সালের ১লা জুলাই রাতে ঢাকার গুলশানে অভিজাত রেস্তোরাটিতে জঙ্গিদের হামলায় ১৮ জন বিদেশি নাগরিকসহ ২২ জন নিহত হয়।

নিহতদের মধ্যে নয় জন ইতালির, সাত জন জাপানের, তিন জন বাংলাদেশি, যাদের একজনের দ্বৈত নাগরিকত্ব ছিল এবং এক জন ভারতীয় নাগরিক। এছাড়া দুইজন পুলিশ কর্মকর্তাও নিহত হয়েছিলেন জঙ্গিদের গুলিতে।

এই রায়ে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী আবদুল্লাহ আবু। তিনি সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, মামলার রায় পর্যালোচনা করে খালাস পাওয়া আসামীর বিষয়ে আপিলের সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

সূত্র : বিবিসি

Facebook Comments