সিটি ব্যাংক-অ্যামেক্সের ১০ বছর পূর্তিতে নতুন সেবা

সিটি ব্যাংক ও আমেরিকান এক্সপ্রেস বাংলাদেশে তাদের যৌথ উদ্যোগের ১০ বছর পূর্তি উদযাপন করছে। এ উপলক্ষে ১৩ ডিসেম্বর রাজধানীর রেডিসন ব্লু ঢাকায় এক জমকালো অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে সিটি ব্যাংক নতুন কিছু সেবা চালুরও ঘোষণা দিয়েছে।

একই আয়োজনে উপমহাদেশের সঙ্গীতের জীবন্ত কিংবদন্তি রুনা লায়লার সুরে আন্তর্জাতিক শিল্পীদের কণ্ঠে গাওয়া বাংলা গানের অ্যালবাম ‘লেজেন্ডস ফরএভার’ অবমুক্ত করা হয়।

সিটি ব্যাংকের প্রযোজনায় রুনা লায়লা ফিচারিং লেজেন্ডস ফরএভার অ্যালবামে কণ্ঠ দিয়েছেন প্রখ্যাত সঙ্গীতশিল্পী আশা ভোসলে।

এতে আরও কণ্ঠ দিয়েছেন হরিহরণ, আদনান সামী ও রাহাত ফতেহ আলী খান।

রুনা লায়লা একটি একক ও আদনান সামীর সঙ্গে একটি দ্বৈত গানে কণ্ঠ দিয়েছেন। অ্যালবাম অবমুক্ত করার আয়োজনে একক সঙ্গীত পরিবেশন করেন হরিহরণ।

অনুষ্ঠানে নতুন কার্ডসেবা ‘সিটি ব্যাংক আমেরিকান এক্সপ্রেস প্রিপেইড কার্ড’ চালুর ঘোষণা দেওয়া হয়। দেশ-বিদেশে ব্যবহার উপযোগী এ সেবাটি করপোরেট হাউজের গ্রাহকরা স্বাচ্ছন্দ্যে ব্যবহার করতে পারবেন। কারণ এতে থাকছে অল-ইন-ওয়ান প্রিপেইড সল্যুশন। যা গ্রাহকদের জন্য হবে দারুণ সাশ্রয়ী সেবা। জানুয়ারি থেকে চালু হবে এ কার্ডসেবা।

সিটি ব্যাংকের চেয়ারম্যান আজিজ আল কায়সার বলেন, আমেরিকান এক্সপ্রেস কার্ডের মাধ্যমেই বাংলাদেশের বাজারে কার্ডসেবায় নতুনধারা তৈরি হয়েছে। অ্যামেক্সের নানা ফিচার গ্রাহকদের জীবন সহজ করে দিয়েছে। সবমিলিয়ে অ্যামেক্স ডিজিটাল সেবার দিকে সবাইকে ধাবিত করতে সক্ষম হয়েছে। এভাবে অ্যামেক্স বাংলাদেশকে ক্যাশলেস সোসাইটির পথে নিতে অবদান রাখছে বলে মনে করেন তিনি।

সিটি ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও মাসরুর আরেফিন বলেন, ১০ বছরের দীর্ঘ পথে নিত্যনতুন সেবা দেওয়ার মাধ্যমে আমেরিকান এক্সপ্রেস ব্যাংকিং খাতে অনন্য উচ্চতায় পৌঁছাতে সক্ষম হয়েছে।

তিনি বলেন, অ্যামেক্স সিটি ব্যাংকের স্বকীয়তার বড় এক পালক হিসেবে যুক্ত হয়েছে বলে আমরা মনে করি। আমাদের এক দশকের অংশীদারিত্ব স্মরণীয় রাখতে প্রিপেইড কার্ড চালু করছি। এটি বিশ্বজুড়েই প্রেস্টিজিয়াস এক ব্র্যান্ড। এ সেবা বহু মানুষের কাছে পৌঁছে যাবে। এর মাধ্যমে সমাজে অন্তর্ভুক্তিমূলক অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড আরও গতিশীল হবে বলে আমরা আশা করছি। এ রূপকল্প সামনে রেখেই আমাদের ব্যাংক কাজ করে যাচ্ছে।

আমেরিকান এক্সপ্রেসের গ্লোবাল নেটওয়ার্ক সার্ভিসের (ভারত ও দক্ষিণ এশিয়া) ভিপি ও বিজনেস হেড দিব্যা জৈন বলেন, ২০০৯ সাল থেকে আমরা সিটি ব্যাংকের সহযোগী হিসেবে আছি। এটা দারুণ গর্বের এক ব্যাপার। এসময়ে আমাদের যৌথ উদ্যোগ অনেক সফল হয়েছে। এরই ফল হিসেবে সেবায় নতুনত্ব আনা সম্ভব হয়েছে। আর এভাবে বাংলাদেশের কার্ডের বাজারে আমরা সেরা হতে পেরেছি। অ্যাম্বাসেডরস ডে ও সিটি ব্যাংক আমেরিকান এক্সপ্রেস প্রিপেইড কার্ডের মাধ্যমে আমাদের ১০ বছর পূর্তি আরও স্মরণীয় হয়ে থাকছে। এভাবে আমাদের অংশীদারিত্ব আরও শক্তিশালী হয়েছে। যা পরবর্তীতে আমাদের আরও সাফল্য এনে দেবে।

সিটি ব্যাংক ও আমেরিকান এক্সপ্রেস বাংলাদেশে তাদের যৌথ উদ্যোগের ১০ বছর পূর্তিতে এই সেবাটি চালু করেছে। ছবি : সিটি ব্যাংক

তিনি বলেন, আমেরিকান এক্সপ্রেস গ্রাহকসেবায় এগিয়ে বলেই পৃথিবীজুড়ে অনেক গ্রহণযোগ্যতা পেয়েছে। সিটি ব্যাংক আমাদের মনের মতো এক অংশীদার, যারা গ্রাহকদের জন্য আমাদের চাওয়া মতো সেবা নিশ্চিত করতে সক্ষম হচ্ছে। বাংলাদেশে সফল একটি অবস্থানে যাওয়ায় আমি আমেরিকান এক্সপ্রেস টিমের পক্ষ থেকে সিটি ব্যাংকের সবাইকে ১০ বছর পূর্তির জন্য অভিনন্দন জানাচ্ছি। আশা করি, আমরা সামনের দিনে আরও ভালো করবো।

এদিকে সিটি ব্যাংক ও আমেরিকান এক্সপ্রেসের যৌথ উদ্যোগের ১০ বছর পূর্তি স্মরণীয় রাখতে গত বৃহস্পতিবার (১২ ডিসেম্বর) সিটি ব্যাংক পালন করে ‘অ্যাম্বাসেডর ডে’। এ কর্মসূচির মাধ্যমে ব্যাংকের চেয়ারম্যান, ব্যবস্থাপনা পরিচালক, উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালকসহ বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তারা আমেরিকান এক্সপ্রেসের প্রতিনিধিদের সঙ্গে নিয়ে মার্কেটে বেরিয়ে পড়েন। তারা দোকানে দোকানে ঘুরে ১০ বছর ধরে আমেরিকান এক্সপ্রেস কার্ড সেবা গ্রহণ করার জন্য ব্যবসায়ীদের ধন্যবাদ জানান এবং আন্তরিক কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

এসময় পাশে থাকার জন্য বিশেষ স্মারক হিসেবে সিটি ব্যাংক-আমেরিকান এক্সপ্রেস স্যুভেনির ব্যবসায়ীদের কাছে হস্তান্তর করা হয়। ১০ বছর পূর্তি স্মরণীয় করে রাখতে সিটি ব্যাংক-আমেরিকান এক্সপ্রেস কার্ড মেম্বাররা ডিসেম্বর মাসের প্রথমার্ধে পাচ্ছেন বিশেষ ছাড় ও অফার।

সিটি ব্যাংক ২০০৯ সালে দেশে নিয়ে আসে আমেরিকান এক্সপ্রেস কার্ড। যার মাধমে বাংলাদেশের গ্রাহকরা বিশ্বমানের কার্ড সেবা পায়। প্রথমদিকে গ্রিন, ব্লু ও গোল্ড ক্রেডিট কার্ড চালু হলেও পরে নিয়ে আসে প্লাটিনাম ক্রেডিট কার্ড ও কো-ব্র্যান্ডেড কার্ডস, যাতে যুক্ত হয় এয়ারলাইন, হাইপার মার্কেট, বিশ্ববিদ্যালয়, এয়ারপোর্ট লাউঞ্জ, সার্ভিস সেন্টার প্রভৃতি।

এসব সেবার মাধ্যমে সিটি ব্যাংক কার্ডসেবায় শীর্ষ অবস্থানে যেতে সক্ষম হয়। বর্তমানে দেশের কার্ডসেবা নেওয়া ৩৫ শতাংশ গ্রাহক সিটি ব্যাংকের সঙ্গে যুক্ত।

Spread the love

Facebook Comments