প্রায় উন্মুক্ত স্তন, প্রিয়াঙ্কাকে নিয়ে সমালোচনা

উন্মুক্ত বক্ষ, নাভিতে বসানো হীরে ঠিকরে বেরচ্ছে দ্যুতি। সাহসী পোশাকে ২০২০’র গ্র্যামির মঞ্চে যেন ঝড় তুলেছেন প্রিয়াঙ্কা চোপড়া। সাহসী পোশাকে এর আগেও ধরা দিয়েছেন। সমালোচনার মুখেও পড়েছেন। কিন্তু এবার দেশি গার্লের ‘গ্র্যামি অবতার’ যেন নয়া বিতর্ক সৃষ্টি করেছে নেটদুনিয়ায়। যে বিতর্কের জের পাশ্চাত্য থেকে আছড়ে পড়েছে ভারতের বিনোদুনিয়াতেও।

প্রিয়াঙ্কাকে কটাক্ষ করে ছবি পোস্ট করেছেন খ্যাতনামা ফ্যাশন ডিজাইনার ওয়েন্ডেল রড্রিক্স। তবে দেশি গার্লের সমর্থনে মুখ খুলেছেন অভিনেত্রী সুচিত্রা কৃষ্ণমূর্তি এবং কানাডিয়ান অভিনেতা কেইটলিন ব্রিসটো।

সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রিয়াঙ্কাকে কটাক্ষ করে নেটিজেনরা কদর্য মন্তব্য করতে ছাড়েননি। ‘নিম্নমানের নির্লজ্জ মহিলা’র তকমাও সাঁটা হয়েছে অভিনেত্রীর উপর। কেউ কেউ আবার কুরুচিকর পোশাক বলেও মন্তব্য করেছেন। ‘কপি ক্যাট’ বলে তুলনা টেনেছেন জেনিফার লোপেজের সঙ্গে। এমনই একটি পোশাক পরে ২০০০ সালে গ্র্যামি পুরস্কারের রেড কার্পেটে হেঁটেছিলেন জেনিফার লোপেজ। যদিও তাঁর পোশাকের রং ছিল সবুজ। এতকিছুর মাঝেই ওয়েন্ডেল রড্রিক্স প্রিয়াঙ্কাকে কটাক্ষ করে মন্তব্য করেন, ‘সত্যিই ২০২০ সালের গ্র্যামি কাঁপিয়ে তুলেছেন প্রিয়াঙ্কা। সাহসী বটে! কিন্তু পোশাকের নেকলাইন তো লাতিন আমেরিকা থেকে একেবারে কিউবা পর্যন্ত চলে গিয়েছে!’ রড্রিক্সের এমন মন্তব্যের পরই দক্ষিণী অভিনেত্রী সুচিত্রা কৃষ্ণমূর্তি পেল্লাই আকৃতির এক পোস্ট করে সোশ্যাল মিডিয়ায় একহাত নিয়েছেন খ্যাতনামা ফ্যাশন ডিজাইনার রড্রিক্সকে।

সুচিত্রার কথায়, “প্রিয়াঙ্কা সত্যিই সাহসিকতার পরিচয় দিয়েছেন। ক্লাচ ব্যাগ দিয়ে মোটেই পেট ঢাকার চেষ্টা করেননি, বরং তাতেই তিনি আরও মোহময়ী হয়ে উঠেছেন। ওঁর আত্মবিশ্বাস সব নারীদের কাছে অনুপ্রেরণার। নারীরা সবসময়ে পুরুষদের চোখেই নিজেদের দেখেছেন। কিন্তু এমন একটি অনুষ্ঠানে প্রিয়াঙ্কার এই পদক্ষেপই দৃষ্টান্তকারী। ওঁর ফ্যান আমি আগে ছিলাম না। তবে, এবার থেকে হলাম। বেশ করেছ প্রিয়াঙ্কা! এগিয়ে যাও।”

অন্যদিকে, গ্র্যামির মঞ্চেই গান গাইতে গিয়ে ট্রোল হলেন নিক জোনাস। দাঁতের ফাঁকে আটকে খাবার। ছবি ভাইরাল হতেই নিককে নিয়ে নেটদুনিয়ায় হাসির রোল।

Spread the love

Facebook Comments