দিল্লিতে সহিংসতায় ২০ জনের মৃত্যু

দিল্লিতে চলতে থাকা সহিংসতার ঘটনায় ২০ জন মারা গেছেন। রবিবার থেকে দুই গোষ্ঠীর মধ্যে পাথর ছোঁড়াছুঁড়ি, ভাঙচুরকে কেন্দ্র করে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনকে কেন্দ্র করে উত্তর-পূর্ব দিল্লিতে ছড়িয়েছে সহিংসতা। সংঘর্ষে আহতের সংখ্যা ১৫০ ছাড়িয়েছে। মঙ্গলবার রাতে জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত ডোভাল ক্ষতিগ্রস্ত এলাকাগুলো ঘুরে দেখেন। দেখা করেন শীর্ষ পুলিশ কর্মকর্তাদের সঙ্গে। অজিত ডোভাল সিলামপুর, জাফরাবাদ, মৌজপুর, গোকুলপুরী চক প্রভৃতি জায়গা ঘুরে দেখেন আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে।

মঙ্গলবার গভীর রাতের এক নির্দেশে দিল্লি হাইকোর্ট পুলিশকে নির্দেশ দেয় সহিংসতার ঘটনায় আহতদের নিয়ে যাওয়ার জন্য নিরাপদ পথের বন্দোবস্ত করতে এবং তাঁদের জন্য আপৎকালীন চিকিৎসার জন্য।

এদিন কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার বৈঠক রয়েছে রাজধানীর হিংসাত্মক পরিস্থিতি পর্যালোচনার জন্য। সহিংসতা ক্রমশ ছড়িয়ে পড়ায় কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহ গত ২৪ ঘণ্টায় তাঁর তৃতীয় বৈঠকটি করেছেন। বৈঠকে ছিলেন আইপিএস অফিসার এসএন শ্রীবাস্তব। মঙ্গলবার তাঁকে বিশেষ পুলিশ কমিশনার হিসেবে নিযুক্ত করা হয়।

এর আগে ভারতের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী বলেছিলেন, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। যদিও একের পর এক মৃত্যুর খবর মিলছিল। এই পরিস্থিতি থামাতে সেনা মোতায়েনের সম্ভাবনাকে উড়িয়ে দিয়ে জানানো হয়েছিল ঘটনাস্থলে যথেষ্ট পরিমাণে আধা সেনা ও পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

Facebook Comments