জিম্বাবুয়কে ৩২২ রানের টার্গেট দিলো বাংলাদেশ

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে টসে জিতে ব্যাট করে বাংলাদেশ সংগ্রহ করে ৩২১ রান। এ ম্যাচে লিটন দাস খেলেছিলেন ১২৬ রানের দুর্দান্ত এক ইনিংস। তবে শেষ দিকে মোহাম্মদ সাইফউদ্দিনের ১৫ বলে ২৮ রানের ঝড়ে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে প্রথম ওয়ানডেতে ৬ উইকেটে ৩২১ রান তুলেছে বাংলাদেশ। এটি জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ওয়ানডেতে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ সংগ্রহ।

লিটন দাস যাওয়ার পর মূল ভরসা ছিল মুশফিকুর রহিম আর মাহমুদউল্লাহর অভিজ্ঞ ব্যাটে। কিন্তু মুশফিক ২৬ বলে ১৯ আর মাহমুদউল্লাহ ২৮ বলে ৩২ করে ফিরে যান। মিঠুন ৪১ বলে ৫০ করেছিলেন। কিন্তু তিনিও শেষ পর্যন্ত টিকে থাকতে পারেননি। তবে শেষ দিকে ঝড় তোলেন সাইফউদ্দিন। ৩ ছক্কায় ১৫ বলে ২৮ রান করে মাঝখানের আক্ষেপটা ঘুচিয়ে দেন তিনি।

তামিম আর লিটন মিলে শুরুটা বেশ ভালোই করেছিলেন। লিটনকে পুরোদমে মেলে ধরার সুযোগ দিয়ে তামিম নিজে আস্তে আস্তে ইনিংস গড়ার কাজে মন দিয়েছিলেন। কিন্তু ১৩ ওভার শেষে সেই তামিমই ফিরে গেছেন দুই ওপেনারের মধ্যে সবার আগে। অভিষিক্ত তরুণ অলরাউন্ডার ওয়েসলি মাধভেরে এলবিডব্লুর ফাঁদে ফেলেছেন তাঁকে। কিন্তু তাঁর ওপেনিং–সঙ্গী লিটন দাস ঠিকই তুলে নিয়েছেন সেঞ্চুরি। তবে ব্যক্তিগত ১২৬ রানে থাকতে পায়ের মাংশপেশিতে টান লাগায় রিটায়ার্ড হার্ট হয়ে মাঠ ছেড়েছেন লিটন।

তবে আউট হওয়ার আগে লিটনের সঙ্গে বাংলাদেশের ইনিংসের ভিত্তিটা বেশ ভালোভাবে গড়ে দিয়ে গেছেন তামিম; যদিও প্রত্যাশার চেয়ে মন্থর ব্যাটিং করেছেন। ৪৩ বল খেলে দুটি চার মেরে ২৬ রান করেছেন তিনি। এলবিডব্লু হওয়ার পর রিভিউ নিয়েছিলেন। লাভ হয়নি। ক্যারিয়ারের প্রথম উইকেট হিসেবে তামিমকেই পেয়েছেন মাধভেরে। ওয়ানডেতে ৭ হাজার রানের মাইলফলক ছুঁতে তামিমের দরকার ছিল আর ১০৮ রান। এই ম্যাচে অন্তত হলো না সেই রেকর্ড।

নিজের ওপেনিং–সঙ্গী আউট হলেও লিটনের ওপর তার কোনো প্রভাব পড়েনি। ৪৫ বলে ফিফটি তুলে নেন তিনি। আছেন দুর্দান্ত ছন্দে। তবে মুশফিকুর রহিম (১৯) বেশিক্ষণ টিকতে পারেননি। তিরিপানোকে থার্ডম্যানে খেলতে গিয়ে উইকেটের পেছনে ক্যাচ দেন মুশফিক। এর আগে দ্বিতীয় উইকেটে নাজমুল হোসেনের সঙ্গে ৭৭ বলে ৮০ রানের জুটি গড়েন লিটন। ২৯ রান করে তিনোতেন্দা মুতুম্বোদজির বলে আউট হন নাজমুল। ৯৫ বলে সেঞ্চুরি তুলে নেন লিটন। রিটায়ার্ড হার্ট হওয়ার আগে তাঁর ১০৫ বলে ১২৬ রানের ইনিংসে ছিল ১৩টি চার ও ২টি ছক্কার মার।

এর আগে টসে জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন মাশরাফি বিন মুর্তজা। ফর্মে থাকা শফিউল ইসলামকে বাইরে রেখে দল সাজিয়েছে বাংলাদেশ। মেহেদি হাসান মিরাজ ও তাইজুল ইসলাম আছেন বাংলাদেশ একাদশে।

Spread the love

Facebook Comments