খাগড়াছড়িতে স্ত্রী-সন্তান হত্যার দায়ে পুত্রের মৃত্যুদণ্ড, মা-বাবার যাবজ্জীবন

Avatar

নিজস্ব প্রতিবেদক

খাগড়াছড়িতে স্ত্রী মাজেদা বেগম (২২) ও ছয় মাসের শিশুপত্র মো: রিদোয়ান আহাম্মদকে শ্বাসরোধ করে হত্যার দায়ে ঘাতক স্বামী মো. ছাবের আলীকে মৃত্যুদণ্ড ও হত্যাকাণ্ডে সহযোগিতার দায়ে তার মা-বাবাকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত। এই মামলার অপর আসামি মো. শাহজাহানের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় তাকে বেকসুর খালাস প্রদান করা হয়।

বৃহস্পতিবার দুপুরের দিকে খাগড়াছড়ি জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক রেজা মো: আলমগীর হাসান এ রায় প্রদান করেন।

দীর্ঘ ৩ বছর ৬ মাস পর রাষ্ট্রপক্ষের ১৬ জন সাক্ষীর সাক্ষ্যে অভিযোগ সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণিত হওয়ায় দন্ডবিধির ৩০২ ধারায় দোষী সাব্যস্ত হওয়ায় আসামি মো. ছাবের আলীকে মৃত্যুদন্ড ও ৫০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড প্রদান করে।

এছাড়াও দণ্ডবিধির ৩৪ ধারায় হত্যাকান্ডে সহযোগীতার দায়ে বাবা মো. মাহবুব আলী ও মা রেনু আরা বেগমক যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও ১০ হাজার টাকার অর্থদণ্ড এবং অনাদায়ে ৬ মাসের সশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করা হয়।

প্রসঙ্গত, ২০১৬ সালের ২২ মার্চ রাতে খাগড়াছড়ির গুইমারা উপজেলার বড়পিলাকে যৌতুকের জন্য স্ত্রী মাজেদা বেগম ও ছয় মাসের শিশু পুত্র রিদোয়ানকে গলা টিপে হত্যা করে স্বামী মো. ছাবের আলী। পরে এলাকাবাসী তাকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করে।

এ ঘটনায় ২৩ মার্চ মাজেদা বেগমের বাবা মো. সাহাব উদ্দিন মেয়ের জামাই ছাবের আলী, তার বাবা মো. মাহবুব আলী, মা রেনু বেগম ও ভাই মো. শাহজাহানকে আসামি করে মামলা দায়ের করে।

রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করে পাবলিক প্রসিকিউটর এডভোকেট বিধান কানুনগো জানান, বাদী পক্ষ ন্যায় বিচার পেয়েছে। রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন নিহত মাজেদা বেগমের স্বজনরাও।

Facebook Comments