এ আর রহমানের মেয়ের বোরকা পরা নিয়ে সমস্যা তসলিমার

নানান বিতর্কিত বিষয়ে কথা বলে নিজেকে আলোচনায় রাখতে যেন পছন্দ করেন বাংলাদেশের নির্বাসিত বিতর্কিত লেখিকা তসলিমা নাসরিন। সম্প্রতি তিনি লেগেছেন ভারতীয় উপমাহদেশের জনপ্রিয় সংগীতশিল্পী ও সংগীত পরিচালক এ আর রহমানের মেয়ে খাতিজা রহমানের সঙ্গে। খাতিজা কেন বোরকা পরেন এটাই হয়েছে তসলিমার জন্য সমস্যা।

এ আর রহমানের মেয়ে বলে যেন খাতিজার বোরকা পরার অধিকার নেই। এমনটিই তসলিমা তার টুইটে বোঝানোর চেষ্টা করেছেন। তিনি লিখেছেন, ‘এ আর রহমানের সঙ্গীত আমি খুবই পছন্দ করি। কিন্তু যখনই আমি তার কন্যাকে দেখি, আমার দমবন্ধ হয়ে আসে। একটি সংস্কৃতিবান পরিবারের শিক্ষিত নারীও যে এরকম মগজ ধোলাইর শিকার হতে পারে, সেটি খুবই পীড়াদায়ক।’

কেউ যদি পায়ে পরে বিবাদ করতে আসে তাকে তো ছেড়ে দেওয়া যায় না। তাই খাতিজা পাল্টা প্রতিক্রিয়ায় টুইট করে বলে, ‘তসলিমার যদি এতই দমবন্ধ লাগে তার উচিৎ বাইরে গিয়ে তাজা বাতাসে শ্বাস নেয়া।’

এদিকে ইনস্টাগ্রামে খাতিজা রহমান আগুনের শিখার একটি ছবি পোস্ট করেন, তার নীচে লেখেন কারসন কোলহফ বলে একজনের উদ্ধৃতি: ‘আমার নীরবতাকে অজ্ঞতা বলে ভুল করো না, আমার নিস্তব্ধতাকে ধরে নিও না সম্মতি কিংবা আমার উদারতাকে দুর্বলতা বলে।’

এরপর খাতিজা আরেকটি পোস্ট দেন তসলিমা নাসরিনের টুইটের স্ক্রীনশটসহ। এবার তিনি লিখেন, “এক বছর পার হয়নি, এর মধ্যে আবার এই বিষয় নিয়ে কথা চলছে। দেশে এখন কত কী ঘটছে, অথচ লোকের সব চিন্তা যেন এক টুকরো কাপড় নিয়ে যেটি একজন নারী পরতে চায়। আমি আসলেই চমকে যাচ্ছি।’

তিনি আরও লিখেছেন, “যতবার এই বিষয়টি নিয়ে কথা হয়, আমার মনের ভেতর আগুন জ্বলতে থাকে এবং আমার অনেক কিছু বলতে ইচ্ছে করে। গত এক বছরে আমি অন্য এক আমাকে আবিস্কার করেছি, যাকে আমি আগে কখনো দেখিনি। আমি দুর্বল হবো না কিংবা যে জীবন আমি বেছে নিয়েছি সেটি নিয়ে আমার কোন অনুতাপ নেই। আমি যা করছি তা নিয়ে আমি সুখী এবং গর্বিত। আমি যা, সেভাবেই যারা আমাকে মেনে নিয়েছেন তাদের ধন্যবাদ।”

আরেক পোস্টে খাতিজা সরাসরি তসলিমা নাসরিনকে সম্বোধন করে লিখেছেন, “প্রিয় তসলিমা নাসরিন, আমার পোশাক দেখে যে তোমার দমবন্ধ হয়ে আসে, সেজন্যে আমি দুঃখিত। আমার কিন্তু দমবন্ধ হয় না বরং আমি যা বিশ্বাস করি তার জন্য আমি গর্বিত এবং নিজেকে আমার আরও বলীয়ান মনে হয়। আমার পরামর্শ হচ্ছে, সত্যিকারের ‘নারীবাদ’ কি জিনিসে তা দয়া করে গুগলে সার্চ করে দেখ। নারীবাদ মানে অন্য নারীকে আক্রমণ করা নয়, তাদের বাবাকে বিতর্কে টেনে আনা নয়।”

তসলিমা নাসরিন যে অনুমতি ছাড়া তার ছবি পোস্ট করেছেন সেজন্যেও খোঁচা দিয়ে তিনি লিখেছেন, “আমার তো মনে পড়ছে না আমার ছবি তোমার কাছে পাঠিয়েছিলাম বলে।”

বিতর্কের রানী তসলিমাও চুপ নেই। তিনি লিখেন ‘প্রিয় খাতিজা, যদি গুগল করো, তাহলে জানতে পারবে গত চার দশক ধরে মেয়েদের সমান অধিকারের জন্য আমার লড়াই।” সেখানে নিজের বক্তৃতার ভিডিও লিংকও দিয়েছেন তিনি।

Facebook Comments