অনলাইনে জাতীয় হাই স্কুল প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতা

‘জানুক সবাই দেখাও তুমি’-এই স্লোগানকে সামনে রেখে শিক্ষার্থীদের আইসিটি ও প্রোগ্রামিংয়ের প্রতি আগ্রহী করে তোলা ও তাদের প্রোগ্রামিং দক্ষতা যাচাই করার জন্য শুরু হয়েছে জাতীয় হাই স্কুল প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতা ২০২০ (এনএইচএসপিসি২০২০)। কোভিড-১৯-এর বর্তমান পরিস্থিতিতে এই আয়োজনের কুইজ ও প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতা অনলাইনে অনুষ্ঠিত হবে। দেশের হাই স্কুল ও কলেজ তথা ষষ্ঠ-দ্বাদশ শ্রেণী এবং সমমানের মাদ্রাসা ও কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের শিক্ষার্থীদের মাঝে কম্পিউটার প্রোগ্রামিংকে জনপ্রিয় করার জন্য তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের
 উদ্যোগে ২০১৫ সালে এই কার্যক্রম শুরু হয়।

আন্তর্জাতিক পরিমন্ডলের সঙ্গে সংগতি রেখে এই কার্যক্রমকে জাতীয় হাই স্কুল প্রোগ্রমিং প্রতিযোগিতা (National High School Programing Contest-NHSPC) হিসেবে অভিহিত করা হয়। এই কার্যক্রমের অংশ হিসেবে শিক্ষার্থীদের জন্য প্রশিক্ষণ, অনলাইন ও অনসাইট প্রোগ্রামিং ও কুইজ প্রতিযোগিতা এবং প্রোগ্রামিং ক্যাম্পসহ আরও নানান আয়োজন করা হয়ে থাকে। ২০২০ সালের আয়োজনে থাকছে অনলাইন প্রস্তুতি প্রতিযোগিতা, অনলাইন মহড়া প্রতিযোগিতা, অনলাইন বাছাই প্রতিযোগিতা ও জাতীয় প্রতিযোগিতা।

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ দেশের হাই স্কুলের শিক্ষার্থীদের কম্পিউটার প্রোগ্রামিংয়ের প্রতি আগ্রহী করে গড়ে তোলা এবং তাদের দক্ষতা বৃদ্ধির জন্য সারা দেশে অনলাইনের মাধ্যমে অনুষ্ঠিত হচ্ছে ‘জাতীয় হাইস্কুল প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতা ২০২০’। এরই ধারাবাহিকতায় আয়োজনের উদ্বোধনী পর্ব ২২ জুন ২০২০ সোমবার অনলাইনের মাধ্যমে অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জনাব জুনাইদ আহমেদ পলক, এমপি।

অনুষ্ঠান উদ্বোধন করতে গিয়ে তিনি বলেন – ‘বিশ্বব্যাপী তথ্যপ্রযুক্তি বিশেষজ্ঞের চাহিদা বাড়ছে। বিশ্বের দরকার রোবটিক্স, কৃত্রিম বৃদ্ধিমত্তা, মেশিন লার্ণিং নিয়ে কাজ করতে পারে এমন প্রোগ্রামার”। বিল গেটস, মার্ক জাকারবরার্গের উদাহরণ টেনে তিনি বলেন বর্তমান প্রোগ্রামিং বিশ্বের রথি-মহারথীরা ছোটবেলা থেকে প্রোগ্রামিং করেছেন। এই জন্য ২০১০ সাল থেকে হাইস্কুলে আইসিট পাঠ্য করার পাশাপাশি সাড়ে আট হাজার স্কুলে শেখ রাসেল ল্যাবরেটির তৈরি করা হয়েছে।’

বিশ্বমানের প্রোগ্রামার হিসেবে নিজেকে তৈরি করতে হলে ছোটবেলা থেকেই শুরু করতে হবে বলে তিনি জানান। তিনি আরও বলেন এখন থেকে ইংরেজি, গণিত ও বিজ্ঞানের পাশাপাশি সবাইকে ছোটবেলা থেকে প্রোগ্রামিং শেখায় মনোযোগী হওয়া দরকার। অনুষ্ঠানের বিশেষ অতিথি তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের সিনিয়র সচিব এন এম জিয়াউল আলম, পিএএ আগামী দিনের উন্নত বাংলাদেশ গড়ে তোলার জন্য শিশু-কিশোরদের প্রোগ্রামিং-এ যুক্ত হওয়ার আহাবন জানান।

বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ ও শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. মুহম্মদ জাফর ইকবাল অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি’র বক্তব্যে বলেন – ‘আমাদের শিক্ষার্থীদের উৎসাহিত করলেই তারা অনেক কিছু করে ফেলতে পারে। এর পাশাপাশি যদি তাদের জন্য কিছু করা যায় তাহলে কাজটা অনেকখানি এগিয়ে যায়। তিনি আশা প্রকাশ করেন হাইস্কুলের শিক্ষার্থীদের এই প্রতিযোগিতা আগামীতে ইনফরমেটিক্স অলিম্পিয়াডে বাংলাদেশর অবস্থান আরও উজ্জ্বল করে তুলবে।’

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অনুষ্ঠানটি সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিলের নির্বাহী পরিচালক (অতিরিক্ত সচিব) পার্থপ্রতিম দেব এবং স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিলের পরিচালক (প্রশিক্ষণ ও উন্নয়ন) জনাব মোহাম্মদ এনামুল কবির।

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন বুয়েটের অধ্যাপক সোহেল রহমান এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রোবটিক্স বিভাগের অধ্যাপক লাফিফা জামাল। এছাড়া আন্তর্জাতিক ইনফরমেটিক্স অলিম্পিয়াডে অংশগ্রহণের অভিজ্ঞতা তুলে ধরেন ২০১৯ সালের ব্রোঞ্জ পদক বিজয়ী আরমান ফেরদৌস। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন বাংলাদেশ ওপেন সোর্স নেটওয়ার্কের সাধারণ সম্পাদক মুনির হাসান।

প্রসঙ্গত, জাতীয় হাইস্কুল প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতার আয়োজক তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ এবং বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল। বাস্তবায়ন সহযোগী বাংলাদেশ ওপেন সোর্স নেটওয়ার্ক (বিডিওএসএন)। জাজিং প্লাটফর্ম হিসেবে টাফ.কো এবং একাডেমিক সহযোগিতায় আরডেন্ট প্রোগ্রামার্স। প্রতিযোগিতায় নিবন্ধন করতে হবে http://online.nhspc.org ঠিকানায়। বিস্তারিত জানা যাবে আয়োজনের ফেসবুক পেইজ fb.com/nhspcbd।

এ আয়োজনে শিক্ষার্থীরা জুনিয়র ক্যাটাগরি (ষষ্ঠ-নবম শ্রেণি) এবং সিনিয়র ক্যাটাগরি (দশম-এসএসসি-দ্বাদশ শ্রেণি ও পলিটেকনিক প্রথম ও দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী), এই দুইটি ক্যাটাগরিতে কুইজ অথবা প্রোগ্রামিংয়ের যে কোন একটি প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করার সুযোগ পাবে। প্রতিযোগিতায় অংশ নেওয়ার জন্য প্রথমেই http://online.nhspc.org ঠিকানায় গিয়ে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে। রেজিস্ট্রেশন চলবে আগামী ২৪ জুন ২০২০ তারিখ রাত ১২.০০টা পর্যন্ত। এছাড়া একই সময়ে আইসিটিতে আগ্রহী শিক্ষার্থীদের জন্য আয়োজন করা হবে আইসিটি কুইজ প্রতিযোগিতা। কুইজ প্রতিযোগিতাও একই ক্যাটাগরি অনুসারে অনুষ্ঠিত হবে।

Spread the love

Facebook Comments